রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন
Logo
নোটিশ :
Wellcome to our website...

পোর্টফোলিও কি? পোর্টফোলিও কেন করবেন? কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হয়?

মোঃ নাছির উদ্দিন / ৩১১ বার
আপডেটের সময় বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২৩

পোর্টফোলিও: কী ও কেন?

পোর্টফোলিও আপনার প্রফেশনাল জ্ঞান, দক্ষতা, গুণাবলি ও অর্জন উপস্থাপনের একটি উপায়। এর মাধ্যমে আগ্রহী যে কেউ আপনার কর্মজীবন সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেতে পারেন। বিশেষ করে নতুন চাকরি বা কাজ পাবার বেলায় এটি আপনাকে সাহায্য করবে।

প্রফেশনাল পোর্টফোলিও কী?

প্রফেশনাল পোর্টফোলিও হলো আপনার যাবতীয় উল্লেখযোগ্য কাজের একটি সংকলন। আপনি যেসব বিষয়ের উপর কাজ করেছেন, সেগুলোর বিস্তারিত বর্ণনা বা ভিজ্যুয়াল উপস্থাপনের মাধ্যমে এটি তৈরি করা সম্ভব।

পেশা আর কাজের ক্ষেত্র অনুযায়ী পোর্টফোলিওর ধরন আলাদা হয়। যেমন, একজন সেলস ম্যানেজার তার ক্লায়েন্টের সংখ্যা, সেলসের পরিমাণ ও সেলস কর্মী ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত তথ্য একটি ডকুমেন্টে সংরক্ষণ করতে পারেন। আবার আপনি একজন গ্রাফিক ডিজাইনার হলে আপনার কাছে থাকা উচিত নিজের করা ডিজাইনের নমুনা আর ডিজাইনে ব্যবহৃত সফটওয়্যার বা টুল ও ক্লায়েন্ট সম্পর্কিত তথ্য।

পোর্টফোলিও কেন গুরুত্বপূর্ণ?

একটি পোর্টফোলিও আপনার প্রফেশনাল দক্ষতা, জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার একটি বড় প্রমাণ। একজন সম্ভাব্য নিয়োগদাতা এর মাধ্যমে আপনার কাজের মান ও প্রক্রিয়া সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পান।

প্রায় সব চাকরির জন্য সিভি বা রেজ্যুমে দরকার হয়। কিন্তু সেখানে শুধু আপনার কর্মজীবনের একটি সারাংশ থাকে। আপনি ঠিক কোন ধরনের কাজ করেছেন, কীভাবে সে কাজ করেছেন ও কাজের সর্বশেষ ফলাফল কী – সিভি/রেজ্যুমে থেকে এসব বিষয়ে ধারণা পাওয়া যায় না। তাই আপনার উল্লেখযোগ্য কাজের একটি সংগ্রহ থাকলে তা প্রফেশনাল দক্ষতাকে ফুটিয়ে তুলতে পারবে।

পোর্টফোলিওর প্রকারভেদ

সার্বিক বিবেচনায় পোর্টফলিও ২ প্রকার। এক. অফলাইন পোর্টফোলিও এবং দুই. অফলাইন পোর্টফোলিও। এই প্রকারের পোর্টফলিওর রয়েছে আরও নামে পরিচিতি!

অফলাইন পোর্টফলিও কে প্রিন্টেড বা ফিজিক্যাল পোর্টফলিও বলা হয়। এছাড়া অনলাইন পোর্টফলিও কে ভার্চুয়াল পোর্টফলিও বলে। যাদের প্রধান কাজ অনলাইনে থাকে না বরং তা অফলাইনে বা বাস্তবিক ভাবে করা হয়; তাদের জন্য অফলাইন পোর্টফলিও তৈরি করা লাগে। যেমনঃ কাপড়ের ব্যবসা, জুতার ব্যবসা ইত্যাদি।

কিন্তু যারা প্রধানত অনলাইনে স্কিলড বা অনলাইনেই যাদের আসল কাজ; তাদের জন্য অনলাইন পোর্টফলিও। যেমনঃ গ্রাফিক্স ডিজাইনার বা ওয়েব ডেভলপার।

একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার যদি একাধারে লোগো, বিজনেস কার্ড, ফ্লায়ার, ব্রুশিয়ার, ট্রাইফোল্ড সহ ইত্যাদি বিষয়ে পারদর্শী হয়; তাহলে এগুলোকে ক্যাটাগরাইজড বা ধরনের ভিত্তিতে ভাগ করে সাজিয়ে পোর্টফোলিও একটি ওয়েবসাইটে সংরক্ষণ করতে হয়।

কিভাবে পোর্টফোলিও তৈরি করবেন?

আমরা ২ প্রকারের পোর্টফোলিও এর ব্যাপারে জেনেছি। প্রথমে অফলাইন/প্রিন্টেড/ফিজিক্যাল পোর্টফলিওর ব্যাপারে বলি। এটা মূলত আপনার কাজের প্রদর্শন। যেমন ধরুনঃ আপনি জুতার ব্যবসায়ী আর একজন ক্লাইন্ট বা ক্রেতা পাইকারি জুতা আপনার কাছ থেকে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

এখন আপনাকে আপনার সেরা জুতা গুলো প্রদর্শন করতে হবে। এজন্য আপনার জুতা গুলোর বিভিন্ন ধরন, রঙ, ডিজাইন এর ভিত্তিতে একটি ডিসপ্লে কার্ড তৈরি করলেন। এই ডিসপ্লে কার্ড অথবা ক্যাটালগটাই হলো আপনার পোর্টফলিও।

কিন্তু বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে এরকম ফিজিক্যাল পোর্টফলিও বহন করে বেড়ানোর পরিবর্তে সেটা ভার্চুয়াল ভাবে তৈরি করে সেই ফাইল বা ওয়েবসাইট প্রদর্শন করতে পারেন। এটা তুলনামূলক সহজ এবং ঝামেলামুক্ত।

অনলাইন পোর্টফলিও হলো আপনার কাজগুলো একটি ব্যক্তিগত বা পার্সোনাল ওয়েবসাইটে সাজিয়ে প্রদর্শন করা। এক্ষেত্রে আপনাকে টাকা খরচ করতে হবে। এটা সবচেয়ে উত্তম। ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে স্বল্পরদামে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনে আপনি একটি পোর্টফলিও ডিসপ্লে ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারেন।

যারা ফাইভার, ফ্রীল্যান্সার, আপওয়ার্কের মতো ফ্রীল্যান্সিং রিলেটেড সাইটে কাজ করতে চান; তাদের জন্য ফ্রী তে পোর্টফোলিও করার কিছু সুবিধা রয়েছে। যেমনঃ ফ্রীল্যান্সার ডট কমে বিনামূল্যে পোর্টফোলিও যুক্ত করা যায়।

এছাড়াও ফাইভার কিছু ওয়েবসাইট এলাও করে। যেমনঃ blogspot, flickr ইত্যাদি। এসব সাইটে ফ্রী তে পোর্টফোলিও তৈরি করে সেটার লিংক আপনি ফাইভাবে ব্যবহার করতে পারেন।

 

তবে প্রফেশনাল হিসেবে আপনার অবশ্যই উচিত নিজের ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে পোর্টফলিও করে তারপর সেটা ক্লাইন্টকে দেখানো। কারণ, ক্লাইন্ট যদি ফ্রীল্যান্সারকে প্রফেশনাল মনে না করে; তাহলে কাজ পাওয়ার তেমন সম্ভাবনা থাকে না।

পেইড পোর্টফলিও ওয়েবসাইট তৈরি করার ক্ষেত্রে আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে রেকমেন্ড করছি। ওয়ার্ডপ্রেসে ভাল ভাল পেইড থিম রয়েছে। সেখান থেকে পছন্দমতো কিনে নিয়ে সুন্দরভাবে আপার পোর্টফলিও ওয়েবসাইট টি সাজিয়ে নিবেন।

যদি আপনার পোর্টফলিও এর মান ভাল হয়; তাহলে ভাল পরিমাণে কাজ পাবেন ইনশা আল্লাহ্। সুতরাং পোর্টফলিও তৈরি করার বিষয়ে আপনার বিশেষ গুরুত্ব দেয়া উচিত।

পোর্টফলিও তৈরি করার সময়ে আপনি যে কাজটি ডিসপ্লে করতে চান আপনার পোর্টফলিওর মধ্যে; সেটার মান যাচাই করুন। সবচেয়ে ভাল মানের কাজটি নিয়ে পোর্টফোলিও তৈরি করতে হবে।

প্রতি নিয়ত আপনার পোর্টফোলিও আপডেট করুন। কারণ সব কিছুর মত ডিজাইন সেক্টরেও ট্রেন্ড থাকে এবং নতুন ট্রেন্ড আসে। তাই আপনার পোর্টফোলিওতে ৩ বছরের অধিক আগের কাজগুলো যুক্ত করবেন না। বেশি পুরাতন কাজগুলো আপনার পোর্টফোলিও তে থাকলে মনে হবে আপনি আপডেটেড ডিজাইনার নন। প্রতি বছর নতুন সফটওয়্যার ভার্শন যেমন বের হয় তেমনি প্রতি বছর নতুন নতুন ডিজাইন ট্রেন্ড চালু হয়। তাই চারিদিকে চোখ কান খোলা রেখে ট্রেন্ড সম্পর্কে জানুন এবং নিজের পোর্টফোলিওতে ট্রেন্ডি কাজ রাখুন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পড়ুন







Theme Created By ThemesDealer.Com
x
x